Categories
গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব

হকার উচ্ছেদ নিয়ে মেয়র আইভির বাড়া বাড়ি

 অনেকদিন ধরেই নারায়ণগঞ্জে হকার এবং তাদের উচ্ছেদ নিয়ে চলছিল উতপ্ত রাজনৈতিক বাক্য আলাপ । হকার এবং তাদের যত্র তত্র ফুটপাত দখল হয়ত কিছুটা হলেও সাধারন মানুষদের চলাচলে বিগ্নিত করে । কিন্তু এই সাধারন মানুষরাই কিন্তু ফুটপাত টিকিয়ে রেখেছে ।

হকারদের কাছ থেকে চাদা যেই নেউক না কেন রাস্তার পাশে খোলা আকাশে  দোকান  খুলে বসা মানুশগুলো কিন্তু কোটিপতি না । নিদারুন পেটের দায়েই এই সকল মানুশগুলা ফুটপাতে বসে কিছু বিক্রির চেষ্টা করে । সখের বসে আনন্দে রোদ বৃষ্টি আর শীতে তারা রাস্তায় দাড়ায় না ।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের অনেক গুরত্বপুরন কাজ আছে এবং অনেক কাজ যা এখন শুরুই  হয় নি সেখানে মেয়র আইভি তার লাইফের মিশন হিসাবে যেভাবে হকার উচ্ছেদ কে একটি ইস্যু বানিয়ে একটি সংঘাত ময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছেন তা একান্তই তার রাজনৈতিক ব্যারথতা ।  কিছু গরীব মানুষের পেটে লাথি মেরে আমাদের ভদ্র সমাজের চলাচলের রাস্তা তৈরি করা কতটুকি শোভনীয় ।

হ্যা এটা সঠিক হকার যেখানেই বসুক যে  ব্যাক্তি রাজনৈতিক ক্ষমতায় আছে তারা এর থেকে চাদা নেয় । এটি শুধুমাত্র নারায়ণগঞ্জের মধ্যেই সীমাবদ্ধ না । হকার রা চাদা দেয়  , তারা পেটের দায়েই দেয় । কাউকে চান্দা দিয়ে যদি তার পেট চলে তাতে সেই খেটে খাওয়া মানুষগুলোর আপত্তি নেই । সিটি কর্পোরেশনের অনেক গুরত্বপুরন কাজ বাদ দিয়ে শুধুমাত্র  সংসদ শামিম ওসমানের বিরোধিতা করার লক্ষে  এতগুলা গরীব মানুষের পেটে লাথি দেওয়ার কোন মানে হয় না ।

আমাদের আহবান মেয়র আইভির কাছে দয়াকরে গরীব মানুশগুলার পেটে লাথি না মেরে তাদের জন্য কিছু করুণ । চাদায় ভাগ পান না বলে হকার উচ্ছেদ করে রাস্তা পরিস্কার করার আইডিয়া কাজ করবে না । আপনি হয়ত বসুন্ধরা নাইলে যমুনায় যান – লক্ষ গার্মেন্টস কর্মী আর খেটে খাওয়া মানুশগুলার বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্স হোল নারায়ণগঞ্জ এর ফুটপাত । আর এই ফুটপাতে বসে হকার দের ঘরে  খাবার জোটে । মানুষের ভাতের প্লেটে লাথি দিয়ে লাভ নাই ।

Categories
গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব

সিদ্ধিরগঞ্জে এবার বিজয় হল তারুণ্যের – আরিফুল হক হাসান নির্বাচিত হলেন চারনাম্বার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর

এইবারের চার  নাম্বার ওয়ার্ডের কমিশনার নির্বাচন ছিল উত্তেজনাকর ।  সিদ্ধিরগঞ্জের একটি অন্যতম গুরত্বপুরন ওয়ার্ডে কে হবেন কমিশনার এই নিয়ে চলেছে বিভিন্ন খেলার চাল ।  এলাকার বিভিন্ন গন্য মান্য ব্যাক্তিবরগ বিভিন্ন মেরুতে ভাগ হয়ে যাওয়ায় এর নির্বাচনী প্রচারনাও ছিল প্রতিযোগিতায় ভরা ও মাঝে মাঝে হুমকিতে নগন্য ।

শুরু থেকেই আওয়ামিলিগের সংগ্রামী নেতা মতিন মাস্টার এর ছেলে আরিফুল হক হাসানের নির্বাচনী প্রচারনায় ছিল অন্য পক্ষের বিপুল হুমকি ধমকি । নির্বাচিত হলে হাসান সমর্থনকারীদের এলাকা ছাড়া করা হবে এর তবলা বাদক ছিল সবখানে । এমনকি বিভিন্ন প্রচারণা ক্ষেত্রে এর  সমর্থনকারীরা শারিরিক ভাবেও  হামলার সম্মুখীন হয়েছে  ।  এইবার প্রাক্তন  কমিশনার হোসেন চেয়ারম্যান  ,  হাসানের অন্যতম প্রতিপক্ষ নজ্রুল কে সমর্থন দিলে  কোণঠাসা হয়ে পড়ে  হসান এর সমর্থনকারী গোষ্ঠী ।  কিন্তু কিছুদিন আগে উপ নির্বাচনে অলরেডি নির্বাচিত হওয়া হাসান জয় করে নিয়েছে তারুণ্যের মন ।

এইবার নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে  হাজারো তরুন ও নতুন ভোটার রা বদলে দিয়েছে সকল প্রেক্ষাপট । টাকা দিয়ে ভোট কেনার সংস্কৃতি বদলে দিয়েছে তরুন ভোটার রা । মুলত শিক্ষিত এবং তরুন হাসান ছিল এলাকার তরুন দের মাঝে একজন আইকন । চার নম্বর ওয়ার্ডে এবার বয়েছে টাকার খেলা । ভোট কেনার রাজনীতিতে এবার অনেক ধন্যাড্য ব্যাক্তি টাকার জোয়ার ভাসিয়েছেন হাসান বিরোধী শিবিরে । টাকার আধিক্যে তাই তারা ছিলেন এতটাই অন্ধ যে নির্বাচনের আগেই তারা জিতে গেছেন এমন ভাব অনেকেই নিয়েছে ।  কিন্তু সমস্যা হোল তরুণদের টাকা দিয়ে কেনা যায় কম , তারুণ্যের মন জয় করতে হয়  ব্যাক্তিত্ব দিয়ে ।

Dব্যাক্তিত্ব , ও জনপ্রিয়তার প্রমান দিলেন আরিফুল হক হাসান । এইবার অতীতের অশিক্ষিত প্রতিপক্ষদের হুমকি গুলো কে ক্ষমা করে দিয়ে একটি সুন্দর সিদ্ধিরগঞ্জ ও ইউনাইটেড সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিষ্ঠা করবেন বলেই সকল নাগরিকের  প্রত্যাশা ।  এলাকার বিভিন্ন  ব্যাপারে  ঐক্য  প্রতিষ্ঠার মাধ্যমেই কেবল এগিয়ে যেতে পাড়ে সিদ্ধিরগঞ্জ , এতে এগিয়ে যাবে আরিফুল হক হাসানের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারও ।

কিন্তু আজ শুরুতেই হাসান এর বিজয় মিছিল হামলার মুখে পড়ে শিরাইল এলাকায় । এতে বিভিন্ন হাসান সর্থনকারী গুরতর ভাবে আহত হয়েছে । ।  দিনের শুরুতেই এই ন্যাক্কারজনক হামলা কারো জন্য ভাল সংবাদ বয়ে আনবে না বলেই সবাই মনে করে । এক মাঘে শিত যায় না তা সবারই dবোঝা উচিৎ ।

আর এখন পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ

সিটি করপোরেশন নির্বাচন – ২০১৬
প্রাপ্ত কেন্দ্রের ফলাফল : ৮৮ টি
সেলিনা হায়াৎ আইভী ৮৮২৮৯
সাখাওয়াত হোসনে খান ৫২৯০৩

জয় তারুণ্যের , জয় বাংলা , জয় বঙ্গবন্ধু

Categories
গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব

Siddhirganj Youth Club Map

Categories
গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভী নারায়ণগঞ্জ মেয়র আইভী সিদ্ধিরগঞ্জ

আল্লাহ ছাড়া আর কাউকে ভয় পাই না : মেয়র আইভী

উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতেই অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে দাবি করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভী। এসময় তিনি আরো বলেন, আমার নামে যতই অপপ্রচার করা হোক না কেন, আপনারা কারো কথায় বিভ্রান্ত হবেন না। আমি উন্নয়ন করতে এসেছি। উন্নয়ন করবোই। যত বাধাই আসুক না কেন, আমি একমাত্র আল্লাহ ছাড়া আর কাউকে ভয় পাই না। আমি আপনাদের পাশে ছিলাম, এখনও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো।

 

বুধবার সকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সিদ্ধিরগঞ্জের ২নং ওয়ার্ড মিজমিজি চৌধুরীপাড়া এলাকায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে দু’টি সড়ক ও ড্রেন নির্মাণকাজের উদ্বোধন করার সময় তিনি এসব কথা বলেন। এছাড়া তিনি আরো বলেন, শুধু ২নং ওয়ার্ড এলাকায় উন্নয়নে ১৭ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

 
পর্যায়ক্রমে সকল রাস্তাঘাট উন্নয়ন করা হবে। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন সাত খুনে নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী কাউন্সিলর সেলিনা ইসলাম বিউটি, কাউন্সিলর মাকসুদা মোজাফ্ফর, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হাজী শফিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আজগর হোসেন, সহকারী প্রকৌশলী জীবন কৃঞ্চ সরকার, সুমন দেবনাথ প্রমূখ।

Categories
আইন শৃঙ্খলা গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব সামাজিক অবস্থা

পারভেজ, ভাই আমার! ভাল থাকিস তুই!

মাত্র বাইশ বছর বয়েস ছিল ছেলেটার, পুলিশের কন্সটেবলের চাকুরি করত। দিনে ষোল থেকে আঠারো ঘন্টা ডিউটি, ছুটি নেই। মাথার উপরে সিনিয়র অফিসারের বকাঝকা, আর নীচে পাবলিকের গালি। এর মধ্যেই কেটে যাচ্ছিল জীবন।

গালি দেবার বেলায় বাঙালি বড়ই স্মার্ট, ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে সুযোগ পেলে বারাক ওবামার মায়ের সাথেও শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে এক মুহূর্ত দেরি করেনা -আর পুলিশ তো কোন ছার! দুষ্ট বদমায়েশ নেই হেন কোন জায়গা এদেশে নেই, তবে বিচিত্র কারণে সবাই মনে করে- একমাত্র পুলিশ ছাড়া এদেশের বাকি সবাই স্বয়ং ভগবান প্রেরিত দেবদূতবিশেষ!

এভাবেই কেটে যাচ্ছিল দিন। গরীব দেশ, এক হাজার জনের জন্য পুলিশ কতজন তা মাইক্রোস্কোপ দিয়ে খোঁজা লাগে। দুর্নীতি, নোংরামির দুষ্টচক্র তো আছেই! সরকারের বরাদ্দ অতি সামান্য, মাথাপিছু দৈনিক ত্রিশ পয়সার কাছাকাছি ট্যাক্স দেয় জনগণ- আর আশা করে ওতেই দেশের পুলিশ এনওয়াইপিডি এর চেয়েও আধুনিক হবে।

Badge_of_BP

ছেলেটার ছোট্ট মাথায় এতসব খেলে না, ও শুধু জানে- পুলিশের চাকুরি মানে চোর ডাকাতের হাত থেকে মানুষকে বাঁচানো। ওটা করতে গেলে প্রাণ যায় যাক, তাও মান বাঁচুক!

বৃহষ্পতিবার কক্সবাজারের লাবনী পয়েন্টে দাঁড়িয়ে ছিল ও। না, ডিউটি শুরু হয়নি তখনও- এমনিই এসেছে সাদা পোশাকে, অস্ত্রও আনেনি সাথে। পুলিশ হলে বুঝি সাগরের ঢেউ দেখতে ইচ্ছে করেনা?!

হঠাৎ চোখে পড়ল একটা দৃশ্য- আরে! কি হচ্ছে ওখানে? দেখে তো মনে হচ্ছে ছিনতাই!

সাথে অস্ত্র নেই, পরা নেই ইউনিফর্মও। যেহেতু এটা ডিউটির সময় না, মুখ ফিরিয়ে চলে গেলেও কারও কিছু বলার নেই। চলেও যেত ও, এরকম ছিনতাই কতই না হয়!

কিন্তু না! পাসিং আউট প্যারেডে কুরআন শরীফ সামনে রেখে প্রতিজ্ঞা করেছিল সবাই- নিজের প্রাণ বিপন্ন করে হলেও মানুষের জানমালের হেফাজত করবে। নাই বা থাকল হাতিয়ার, নাই বা হল ডিউটির সময়, পালিয়ে গেলে আয়নায় মুখ দেখাবে কিকরে!

আঠারো বছর বয়েসে পুলিশে ঢুকেছে ও, ফোর্স ওকে আর ওর পরিবারকে এতদিন রেশন খাইয়েছে। উর্দি পরণে না থাকুক, উর্দির ফরজ নেভানোর এই তো সময়!

রণহুংকার ছেড়ে খালি হাতে এগিয়ে গেল ও, একাই জাপটে ধরল অস্ত্রধারী তিন তিনজন ছিনতাইকারীকে।

সাড়ে ছয় হাজার টাকা ছিল ভিকটিমের পকেটে, ওটা কেড়ে নিতে বুকের ঠিক মাঝখানে ছুরি বিঁধিয়ে দিল ছিনতাইকারী।

ওর লড়াই দেখে এগিয়ে এল আশেপাশের মানুষ, ধরা পড়ল তিন ক্রিমিনাল। কিন্তু হায়, ছেলেটা হারিয়ে গেল না ফেরার দেশের মেঘের আড়ালে!

ছেলেটার নাম পারভেজ হোসেন( 22) , পুলিশ কন্সটেবল, টুরিস্ট পুলিশ ইউনিট, কক্সবাজার।

এরকম শত শত কন্সটেবল পারভেজের রক্তে এই ভাঙাচোরা দেশের মানুষ রাতের বেলা শান্তিতে ঘুমায়, তারপর সকাল বেলা নিজের কুকাম ঢাকতে ট্রাফিক সার্জেন্টকে ঘুষ দেয়। দুপুরে ভাত খাবার আগে মাদারচোত পুলিশ বলে গালি দিতেও ভোলেনা আবার!

মিডিয়াতে এগুলো আসেনা বেশিরভাগ সময়ে, আসলেও কোন এক কোনাকাঞ্চি দিয়ে। “আসামীর কাছ থেকে পয়সা খেল পুলিশ” আপনি প্রতিদিন দেখবেন, “ছিনতাই ঠেকাতে জীবন দিল পুলিশ” কখনোই নয়। পুলিশের কল্লা নিতে তৈরি বাকি সব সংস্থা, জনগণ সবাই- কিন্তু পুলিশকে কিভাবে উন্নত করা যায় তা নিয়ে দু লাইন লেখবার সময় কই?!

সবুজ টি শার্টের উপর ছুরির আঘাতে বের হওয়া রক্ত যেন ঠিক বাংলাদেশের পতাকা। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন হবেনা ওর, কিন্তু বাংলা মায়ের পতাকা ওর বুকে জড়ানো ঠেকল কই!

পারভেজ, ভাই আমার! ভাল থাকিস তুই!

Written By

Mashroof Hossain

Senior ASP

Bangladesh Police

Categories
গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব সামাজিক অবস্থা

বড় ডিগ্রীর চেয়ে ভাল মানুষ হওয়াটা বড় : শামীম ওসমান

198508-1728x800_c

সিদ্ধিরগঞ্জ রেবতি মোহোন কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে শামিম ওসমান বলেন  বড় ডিগ্রীর চেয়ে ভাল মানুষ হওয়াটা বড়। ভাল মানুষের সম্মান সব সময় বেশী, টাকার সম্মান বেশী নয়। সময়টা নষ্ট করো না। তোমরাই এদেশের নেতৃত্বে আসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ নিজের পায়ে ভর করে দাড়িয়েছে। এর ভবিষ্যত কর্নধার তোমারা। এখন বাংলাদেশে মেয়েরা দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে, এ অগ্রযাত্রা অব্যহত থাকলে বাংলাদেশকে দমিয়ে রাখতে পারবে না কেউ। সোমবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জ রেবতী মোহন পাইলট স্কুল এন্ড কলেজে নবীন বরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ছাত্র/ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন। রোটারী ইন্টারন্যাশনালের ডিপুটি গভর্নর মোহাম্মদ আব্দুর রবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি মজিবর রহমান, হাইডেল বার্গ সিমেন্টের বাংলাদেশ লিঃ পরিচালক (পরিকল্পনা) বোদী নোগরাহা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগ আহবায়ক মতিউর রহমান মতি, সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক প্রশাসক আব্দুল মতিন প্রধান, আদমজী আঞ্চলিক শ্রমিকলীগ সভাপতি আব্দুস সামাদ বেপারী, সহ-সভাপতি কবির হোসেন ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী মোহাম্মদ ইব্রাহিম প্রধান প্রমুখ।
শামীম ওসমান ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ডাক্তার হওয়া, ইঞ্জিনিয়ার হওয়া কোন সাবজেক্ট না। সাবজেক্ট হচ্ছে- ভাল মানুষ হওয়া। এ সময় তিনি নিজের মোবাইল নাম্বর ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে মাদক বিক্রেতা ও ইভটিজারদের নাম তার মোবাইলে এস এম করার পরামর্শ দেন। ছাত্রীদের আত্মহত্যা না করতে আহ্বান জানিয়ে তিনি ইভটিজারদের প্রতিরোধ করার আহ্বান জানান।
এ ছাড়াও এলাকার রাস্তাঘাট ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার ও সড়ক যানজট মুক্ত কার্যক্রমে ছাত্র/ছাত্রীদের অংশ গ্রহন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতেও তিনি আহ্বান জানান।

Categories
আইন শৃঙ্খলা গুরত্বপুরন ব্যাক্তিত্ব রাজনীতি

কিসের খালেদা, দায়িত্ব দেন এক ঘণ্টায় সব ঠিক করে ফেলব: শামীম ওসমান

 

Shamim Osman

সিদ্ধিরগঞ্জের মাননীয় সংসদ সদস্য  শামীম ওসমান বলেছেন, ‘ছাত্ররাজনীতি করাকালে জিয়াউর রহমানের গাড়ি থেকে পতাকা নামিয়েছি। এরশাদকে বাধা দিয়েছি। খালেদা জিয়াকে লংমার্চে বাধা দিয়েছি।’ তিনি বলেন, ‘আমি নেত্রীকে (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) বলেছি। কিসের খালেদা জিয়া, আমাদের দায়িত্ব দেন এক ঘণ্টায় ঢাকা এসে সমস্ত কিছু ঠিক করে ফেলব।’
আজ শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জপুল এলাকায় তাঁকে দেওয়া গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে গিয়ে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনকে ট্যাক্স প্রদান বন্ধ করতে সিদ্ধিরগঞ্জবাসীর প্রতি আহ্বান জানান নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের ক্ষমতাসীন দলের এই সাংসদ। তিনি সিদ্ধিরগঞ্জবাসীর উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনারা সিটি করপোরেশনকে ট্যাক্স প্রদান বন্ধ করে দেন। আমি উন্নয়ন করে দেব।’
সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল মতিন মাস্টার, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি নূর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, যুবলীগের আহ্বায়ক মতিউর রহমান মতি প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, ৫ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন শামীম ওসমান। ২০১১ সালের ৩০ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে মেয়র প্রার্থী হলেও সেলিনা হায়াত আইভীর কাছে এক লাখ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি।

© Copyright 2013 – আমাদের সময়