গতবারের খেলা এবার আর হবে না

শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আগামী নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হবেন না আওয়ামী লীগদলীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। তবে ওই নির্বাচনে তিনি অন্য একজনকে প্রার্থী দেবেন। ওই প্রার্থী পাস করলেও কাজ করবেন তিনিই। তিনি বলেছেন, ‘মেয়র যেই হবে মেয়রের জায়গায় মেয়র থাকবে। ওই মেয়রের পক্ষে সব কাজ আমি শামীম ওসমান করব। এ কথা আপনাদের দিতে চাই।’ বর্তমান মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘গতবারের খেলা কিন্তু এবার হবে না।’

 

রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের ডিআইটি চত্বরে দুর্নীতি প্রতিরোধের ব্যানারে সচেতন জনগণ নামের শামীম ওসমান সমর্থিতদের আয়োজনে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।

 

শামীম ওসমান বলেন, ‘(সিটি নির্বাচনে) আমরা অবশ্যই একজন ভালো, সৎ প্রার্থী দিব। যাকে দিয়ে নারায়ণগঞ্জকে আমরা ফুলের মতো সাজাব।’ বর্তমান মেয়র সেলিনা হায়াত আইভির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি চাই, যদি এক বাবার মেয়ে হয়ে থাকে তবে আগামীতে সে নির্বাচন করে। আমি দেখতে চাই। আমরাও একটা প্রার্থী দিব। নির্বাচন করলে আপনার বাক্সে কয়টা ভোট পড়ে। গতবারের খেলা কিন্তু এবার হবে না। রাতের বেলায় প্রতিবাক্সে এক হাজার ভোট। ১০১ সেন্টারে এক লাখ এক হাজার ভোট চলে যাবে। ওই খেলা এবার হবে না। যেহেতু হবে না আর নির্বাচন যেহেতু আমি করমু না, করামু। তাই বুইঝা শুইনাই নাইমেন। আশা করি জামানত নিয়া বাসায় যাইতে পারবেন না। সৎ সাহস থাকলে হঠাৎ কইরা সুফিয়ান, টুফিয়ানরে নিয়া নিউজিল্যান্ড কানাডায় চইলা যাইয়েন না। থাইকা যাইয়েন। বইলা যাইয়েন গেলে।’

 

শামীম ওসমান বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে একটা বাচ্চা ছেলে মারা গেল। তার নাম ত্বকী। নাটক শুরু হয়ে গেল। কী করেছে? শামীম ওসমান মেরেছে। আর কী করেছে? আমার ছাত্রলীগের সেক্রেটারি সুজন মেরেছে। আমার ছেলেও নাকি সাথে মেরেছে। আমরা সাতজন মিলে নাকি মেরেছি। কেমনে মেরেছি? নিজ হাতে নাকি মেরেছি। মানে আমি পায়ে ধরছি, আমার ছেলে মাথায় ধরছে। এতগুলো মানুষ মিলে ওরে মাইরা ফালাইছে। সক্রিয়ভাবে যদি মারতে হয় তাহলে তো আমার উপস্থিত থাকা দরকার।’ তিনি আরো বলেন, ‘আইভি রাস্তায় নেমে বলা শুরু করে দিল এই ওসমান পরিবার। সাথে কিছু ছাগলের বাচ্চা ছিল এগুলোও দেখি লাফালাফি শুরু করল। আমি বললাম আরেকটু লাফায়া নে, টায়ার্ড হ- এরপরে কথা কই। আমি সাংবাদিকদের ডাকলাম, নারায়ণগঞ্জের সুশীল সমাজকে ডাকলাম। যদি হত্যা করতে হতো তাহলে তো আমার থাকতে হয়। আমি পাসপোর্ট দেখিয়ে বললাম আমি তখন দুবাই ছিলাম। আমার ছেলেও আমার সঙ্গে ছিল। ওদের মুখে কুলুপ আইটে গেল। তিনি বলেন, ‘এরপর বলল শামীম না নাসিম ওসমানের ছেলে মাইরা ফালাইছে। দুই মাস আগে আমি মারলাম, দুই মাস পর আমার ভাতিজা মারলো।’

 

একই প্রসঙ্গে শামীম ওসমান বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের র‍্যাব যখন তারা ছিল এরা তখন ইন্টু পিন্টু খুব বেশি করত এবং রাতের বেলায় মিটিং করত। এক জায়গায় আবার খানাপিনা হতো। কিছু বৈঠক হতো। ওই বৈঠক ছিল কীভাবে আওয়ামী লীগকে শেষ করা যায়। ওই র‍্যাবের ভাইয়েরা আজকে কোথায় আছে আপনারা জানেন। ওই দুর্নীতিবাজ র‍্যাবরা যারা আমার নজরুলকে হত্যা করেছে; এক ঢিলে দুই পাখি মেরেছে- সেই র‍্যাবের কর্মকর্তা আজকে জেলখানার ভেতরে অবস্থান করছেন।’

 

শামীম ওসমান আরো বলেন, ‘সেলিনা হায়াৎ আইভী বিগত দিনে কোনো উন্নয়নের কাজ করেনি। অপরিকল্পিত ভাবে যেখানে সেখানে দোকান-পাট, মার্কেট ও পার্ক নির্মাণ করে দুর্নীতি করেছে। মেয়রের দুর্নীতির বিষয়ে আমি সংসদে কথা বলেছি। দুর্নীতি কমিশন যদি আইভীর বিচার না করে, তবে জনগণের আদালতে তার বিচার হবে।’

 

শামীম ওসমান আরো বলেন, ‘শেষ সময়ে এসে আইভী এখন কাজ দেখানোর চেষ্টা করছে। নিজের লোকদের টেন্ডারে কাজ দিচ্ছে। মেয়রের কোটার দোকান-পাট স্বজনদের মাঝে দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৩৬ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ২৬ জনই আজ আমার সাথে এই মঞ্চে এসেছে। আইভীর দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলতে শুরু করেছে।’

 

নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন বিকেএমইএর সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল হক, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সিদ্ধিরগঞ্জ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর ইসরাত জাহান স্মৃতি, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদল প্রমুখ।

Aziz Tarak

King In My Kingdom & Don't mess with me, Always I don't act like a Gentlemen.

You may also like...

%d bloggers like this: